শুরু হতে যাচ্ছে ফেইসবুক ডেটিং। আর তাই এখন থেকে আর অনলাইন ডেটিং এ আগ্রহীদেরকে টিন্ডার বা অন্য কোন থার্ড পার্টি সফটওয়্যারের উপর নির্ভর করতে হবেনা। কারন ফেইসবুক “ডেটিং” নামে তাদের নিজস্ব ডেটিং সার্ভিস নিয়ে এসেছে।






ফেইসবুক ডেটিং ব্যাবহার করা যাবে খুব সহজেই, কারন এর জন্য কোন নতুন একাউন্ট তৈরি করতে হবেনা। নিজের ব্যবহৃত ফেইসবুক একাউন্ট দিয়েই এটি ব্যবহার করা যাবে। যদিও অন্য একাউন্ট  দিয়েও এটি ব্যবহার করার সুবিধা রাখা হয়েছে। একাউন্ট তৈরি করার পর যারা ইতোমধ্যে প্রোগ্রামটি ব্যবহার করছে তাদেরকে সাজেস্টেড করা হবে আবার তাদেরকেও নতুন ইউজারের প্রতি সাজেস্টেড হিসেবে দেখানো হবে যা অনেকটা টিন্ডারের মতই।






তবে অবশ্যই অন্যান্য সাইটগুলোতে অপব্যবহারের যেই ঝুঁকি থাকে, তাই ফেইসবুক তার অনলাইন ডেটিং ইউজারদের নিরাপত্তার জন্য কিছু ফিচার জুড়ে দিয়েছে। কোন ইউজার চাইলে মেসেঞ্জারের মাধ্যমে ডেটিং এর সবকিছু যেমন লাইভ লোকেশন তার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারবে।







টিন্ডার এর মতই ফেইসবুক ডেটিংএর ও স্টোরিজ সিস্টেম রাখা হয়েছে। কোন ইউজার চাইলে তার ফেইসবুকের পোষ্টটি ডেটিংয়ে স্টোরিজ এ জুড়ে দিতে পারবে।
যেহেতু ফেইসবুক এমনিতেই খুবই জনপ্রিয়, তাই কারো ভবিষ্যৎ সঙ্গী তার বন্ধু অথবা অনুসরণকারী হিসেবে ফেইসবুকে থাকার সম্ভাবনা এমনিতেই আছে। নতুন এই অ্যাপটিতে “সিক্রেট ক্রাশ” নামে একটি ফিচার আছে যার মাধমে কোন ইউজার বিশেষ কোন ব্যাক্তিকে এতে এড করতে পারবে এবং উক্ত এডেড ইউজার কারো ক্রাশ এই মর্মে একটি নটিফিকেশন পাবে।

বর্তমানে বিশ্বের বিশটি দেশে ফেইসবুক ডেটিং ব্যবহার করা যাবে, তবে এখনো ইউরোপিয়ান কোন দেশে এই সার্ভিসটি চালু হয়নি। তবে ফেইসবুক প্রতিশ্রুতি দিয়েছে যে ২০২০ এর প্রথম দিক থেকে ইউরোপিয়ানরা এই সুবিধাটি পাবেন। ফেইসবুকের ডেটিং ফিচারটি ব্যবহার করা যাবে যেই দেশগুলোতে তার তালিকাঃ আর্জেন্টিনা, বলিভিয়া, ব্রাজিল, কানাডা, চিলি, কলম্বিয়া, ইকুয়েডর, গায়ানা, লাওস, মালেশিয়া, মেক্সিকো, প্যারাগুয়ে, পেরু, ফিলিপাইন, সিঙ্গাপুর, সুরিনাম, থাইল্যান্ড, উরুগুয়ে, ভিয়েতনাম এবং আমেরিকা।
সুত্রঃ ইন্টারনেট

1 Comments

  1. আকাশ ভাই আপনাকে আমার একটু দরকার। আপনার ফোন নাম্বার টা দেয়া যাবে? আমি আপনাকে ফেসবুকে নক দিয়েছি এবং রিকয়েষ্ট ও দিয়েছি কোন রেস্পন্স নাই প্লিজ আপনার নাম্বার টা দেন ভাই

    ReplyDelete

Post a Comment

Previous Post Next Post